রিলঞ্চের জন্য সরকারি অনুমোদনের অপেক্ষায় বিখ্যাত মোবাইল গেম PUBG!

0
761

বিশ্বজুড়ে সারা ফেলা অনলাইন মোবাইল গেম PUBG আবার প্রবেশ করার পথে ভারতে। তবে ভারত সরকার এই গেমকে অনুমোদন করবেন কিনা এই নিয়ে যথেষ্ট সন্দেহ প্রকাশ করছে সংবাদমাধ্যম।

সম্প্রতিকালে PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে খুব শীঘ্রই ভারতে পুনরায় লঞ্চ হতে চলেছে বিখ্যাত অনলাইন মোবাইল গেম PUBG। তবে এইবারে এই গেম আসতে চলেছে একটি সম্পূর্ণ নতুন রূপে। সূত্রে জানা গিয়েছে ভারতে খুব শীঘ্রই এই গেম পুনরায় প্রবেশ করবে ভারতবর্ষে। তবে কয়েকজন নেটিজেনের মতে PUBG-এর ভারতে পুনপ্রবেশ খুব একটা সহজ হবে না।

জাতীয় সুরক্ষা:

ভারতীয় সীমান্তে চীনের সাথে ভারতের সংঘর্ষের দরুন জাতীয় সুরক্ষার স্বার্থে কেন্দ্রীয় সরকার ৬৯(এ) ধারা প্রয়োগ করে PUBG মোবাইল গেমের সাথে আরও ১১৫টি চৈনিক অ্যাপ নিষিদ্ধ করে দিয়েছিলেন ভারতে। চীন দেশের এই অ্যাপগুলো ভারতে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল সেপ্টেম্বর মাসেই। নিষিদ্ধ করার কারণ হিসাবে সরকারের তরফ থেকে অনেকগুলো কারণ তুলে ধরা হয়েছিল। চীন দেশের এই অ্যাপগুলো জাতীয় সুরক্ষার ক্ষেত্রে বিপদজ্জনক হয়ে উঠেছিল এবং এর মাধ্যমে সহজেই চীন দেশের সরকার ভারতের তথ্য হরণ করে ক্ষতি করার চেষ্টা করতে সক্ষম ছিল। এছাড়াও PUBG গেমের কারণে তরুণ প্রজন্মের মধ্যে বেড়ে গিয়েছিল হিংসাত্মক প্রবণতা।

সূত্রে খবর, PUBG মোবাইল গেম ভারতে প্রবেশ করার অনুমতি চাইলেও ভারতীয় সরকার এখনো তার সিদ্ধান্তে অনড়। তবে PUBG কর্পোরেশন থেকে যদি তাদের গেমের পূর্ববর্তী সমস্যাগুলোর সমাধান করে দেওয়া হয় তাহলে হয়তো ভারত সরকার এই গেমকে পুনরায় প্রবেশ করার অনুমতি দিতেও পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। এই কারণেই PUBG কর্পোরেশন থেকে এই মোবাইল গেমকে নতুন রূপে লঞ্চ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

PUBG মোবাইল নতুন রূপে এলেও সেই নতুন PUBG ভার্সনকে ভালোভাবে খুঁটিয়ে না দেখে এবং তার পলিসিগুলো সম্বন্ধে ভালোভাবে বিবেচনা না করে এই অ্যাপকে ভারতে প্রবেশের অনুমতি দেবেন না কেন্দ্রীয় সরকার। তবে এখনো PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে তাদের অ্যাপের নতুন ভার্সন পেশ করা হয়নি ভারত সরকারকে।

PUBG মোবাইল গেমের রিলঞ্চ ঘোষনার সময় PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে, নতুন রূপের PUBG মোবাইল গেম ভারতীয় গেমারদের একটি স্বাস্থ্যকর গেম খেলার পরিবেশ দিতে সক্ষম হবে। এছাড়াও PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে ভারতীয় গেমারদের privacy and security-এর বিষয়টির সম্বন্ধে বিশেষভাবে খেয়াল রাখা হয়েছে এই নতুন রূপের PUBG গেম-এ। ভারতীয় গেমারদের ব্যক্তিগত তথ্য যাতে সুরক্ষিত থাকে সেই বিষয়ে রাখা হবে অতিরিক্ত বিশেষ খেয়াল। PUBG গেম কোম্পানি এই বিষয়টি সম্পূর্ণভাবে সুরক্ষিত করার জন্য নিয়মিত ভেরিফিকেশন চালাবেন বলেও জানিয়েছেন তাদের এই ঘোষনায়। এই প্রক্রিয়ায় ভারতীয় গেমারদের ব্যক্তিগত তথ্য সম্পূর্ণভাবে সুরক্ষিত থাকবে বলে প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে গেম কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে।

সাউথ কোরিয়ার Krafton Inc কোম্পানির তরফ থেকেও ভারতে ১০০ মিলিয়ন ডলার বিনিয়োগের ঘোষনা করা হয়েছে সম্প্রতি। Krafton হল প্রধান হোল্ডিং কোম্পানি এবং তার সহযোগী অংশ হল PUBG কর্পোরেশন। সাউথ কোরিয়ার একটি বিখ্যাত কোম্পানি হলো Bluehole, সেই কোম্পানি দ্বারা প্রতিষ্ঠিত আরেকটি ব্রাঞ্চ কোম্পানি হলো Krafton। PUBG কর্পোরেশন হলো এই Bluehole কোম্পানির অন্তর্বর্তী স্টুডিও। Krafton কোম্পানির এই ভারতীয় বিনিয়োগ ছাড়াও PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে ভারতে একটি কর্মক্ষেত্র তৈরী করার কথাও ঘোষনা করা হয়েছে। PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে তারা তাদের যোগাযোগ ব্যবস্থা এবং সার্ভিস উন্নত করার জন্য তৈরী করবে একটি ভারতীয় বেস যেখানে প্রায় ১০০ জনেরও বেশী ভারতীয় কর্মচারীকে নিয়োগ করা হবে।

ভারতে নিষিদ্ধ হওয়া পূর্ববর্তী PUBG মোবাইল গেম-এর ডিস্ট্রিবিউটার ছিল Tencent Games। তবে নতুন PUBG মোবাইল ইন্ডিয়ায় একই বিষয়বস্তু থাকলেও এটি একটি সম্পূর্ণ আলাদা গেম হতে চলেছে। এইবারের PUBG গেমের ডিস্ট্রিবিউটরেও এসেছে বদল কারণ এই নতুন PUBG মোবাইল গেম ডিস্ট্রিবিউট করবে PUBG কর্পোরেশন নিজেই। PUBG PC এবং PUBG console এই দুটিরই ডিস্ট্রিবিউটর হলো PUBG কর্পোরেশন এবং এই দুটি এখনো ভারতে সহজলভ্য তবে পেইড ভার্সনে।

যদিও কেন্দ্রীয় সরকারের এই সম্বন্ধে মতামত এখনো কিছু নির্দিষ্টভাবে জানা যায় নি তবে রিলঞ্চ করার আগে PUBG মোবাইলের এই নতুন ভার্সনে অনেকগুলো পরিবর্তন নিশ্চিত ভাবে আনবে PUBG কর্পোরেশন। তবে এই বিষয়টি নিয়ে এখনো PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে নিশ্চিতভাবে কোনো বার্তা প্রকাশ করা হয় নি।

ভারতীয় গেমারদের মতামত:

এই বিষয়টি নিয়ে বিভিন্ন বিখ্যাত ভারতীয় মোবাইল গেমারদের ভিন্ন মতামত আছে।

একজন ভারতীয় গেমার সালমান আহমেদ যিনি ইউটিউবে ‘8bit MAMBA’ নামে গেম স্ট্রিম করে থাকেন, তার মতে, “ PUBG কে আবার ভারতে নিয়ে আসার আগে এর সমস্ত Terms and conditions নিয়ে ভালোভাবে আলোচনা করে নেওয়া উচিত কেন্দ্রীয় সরকার এবং PUBG কর্পোরেশনের মধ্যে। পূর্বে যেই সমস্যাগুলোর জন্য এই গেমকে ভারতে নিষিদ্ধ করে দেওয়া হয়েছে সেই বিষয়গুলোর পুনরাবৃত্তি যাতে না ঘটে এই বিষয়টি সম্বন্ধে ভালোভাবে নিশ্চিত হয়ে তবেই পুনরায় এটিকে লঞ্চ করা উচিত”। গেমার সালমান আহমেদের মতে এই সমস্ত দিক সঠিকভাবে বিবেচনা না করে যদি পুনরায় এই গেম লঞ্চ করা হয় তাহলে দ্বিতীয়বার আবার এই গেম নিষিদ্ধ হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যায়। আর এই গেম যদি দ্বিতীয়বার নিষিদ্ধ হয়ে যায় ভারতে তাহলে এর পুনরায় প্রত্যাবর্তন করা প্রায় একপ্রকারে অসম্ভব।

গেমার টিম SouL-এর প্রাক্তন টিম মেম্বার হেমন্ত সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, তার মনে হচ্ছে ভারত সরকার এবং PUBG কর্পোরেশনের মধ্যে এই গেমের প্রত্যাবর্তন নিয়ে একটি সিদ্ধান্ত ইতিমধ্যেই নেওয়া হয়ে গেছে। শুধু তার ঘোষনা এখনো সর্বসমক্ষে করা হয় নি। তার মতে, ভারত সরকারের অনমোদন পেয়ে খুব শীঘ্রই PUBG গেমের ভারতে পুনপ্রবেশ ঘটবে।

NODWIN Gaming-এর ফাউন্ডার এবং MD আক্সাত রাঠী সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন, “ আমি ১০০% নিশ্চিত যে PUBG মোবাইল গেম আবার ভারতে ফিরে আসবে। Bluehole কোম্পানি এবং ভারত সরকার একসাথে আলোচনা করে তাদের সমস্ত সমস্যার সমাধান ঘটিয়ে আবার ফিরিয়ে আনবে PUBG-এর মতো একটি জনপ্রিয় মোবাইল গেমকে”। তিনি আরও জানিয়েছে  Bluehole কোম্পানি ভারতীয় গেমারদের ব্যক্তিগত তথ্য সুরক্ষার্থে যেই পদক্ষেপগুলো গ্রহণ করেছেন তা সত্যই প্রশংসনীয়। এছাড়াও Bluehole-এর মতো একটি বৃহত্তম কোরিয়ান কোম্পানির এতবড় ভারতীয় বিনিয়োগ ভারতবাসীর মনে তাদের প্রতি একটি ধণাত্মক মনোভাব অবশ্যই সৃষ্টি করবে। ভারত সরকার এবং PUBG কর্পোরেশনের মিলিত চেষ্টায় সমস্ত সমস্যার সমাধান ঘটিয়ে শীঘ্রই ফিরে আসতে চলেছে জনপ্রিয় মোবাইল গেম PUBG। এখন শুধু চরম ঘোষণার অপেক্ষা।

Esports Federation of India (ESFI)-এর ডিরেক্টর লোকেশ সুজি-র মতে, PUBG কর্পোরেশন দ্বারা ঘোষিত সাম্প্রতিক ঘোষনায় যে তারা ভারত সরকারের প্রধান সমস্যা ভারতীয় গেমারদের তথ্য সুরক্ষার বিষয়টির সম্বন্ধে বিশেষ সচেতন হয়েছে, সেটি বিশেষ ভাবে প্রশংসণীয়। এছাড়াও ভারতীয় গেমারদের চাহিদা অনুযায়ী PUBG কর্পোরেশন তাদের গেমকে সেইভাবে পরিবর্তন করার ঘোষনাও করা হয়েছে। PUBG গেমের নতুন রূপে গেমের অবতারগুলো জামাকাপড় হবে ভারতীয়দেরই মতো। এছাড়াও এতে থাকবে খেলার সময় নিয়ন্ত্রন করার ফিচার যা ছোটোবয়সের গেমারদের জন্য স্বাস্থ্যকর। এই বিষয়গুলো ভারতে PUBG গেমকে তার হারানো অবস্থান ফিরিয়ে দিতে সাহায্য করবে। তবে শেষ সিদ্ধান্ত অবশ্যই হবে ভারত সরকারের।

PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে তবে এই গেমের প্রত্যাবর্তনকে সুনিশ্চিত ভাবে ঘোষনা করা হয়েছে এবং জানানো হয়েছে এইবারে PUBG মোবাইল ভারতে প্রত্যাবর্তন করবে PUBG মোবাইল ইন্ডিয়া নামে। তবে এটির প্রত্যাবর্তনের সঠিক তারিখ এখনো নিশ্চিতভাবে জানানো হয় নি PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে। এছাড়াও PUBG মোবাইল লাইট কবে দেশে ফিরবে সেই বিষয়েও নিশ্চিত ভাবে কোনো ঘোষনা করা হয় নি PUBG কর্পোরেশনের তরফ থেকে। আপনার কি মনে হয়?আপনার মতামত অবশ্যই আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনের মাধ্যমে এবং লাইক ও শেয়ার করে পোস্টটিকে ছড়িয়ে দিন সকলের মাঝে।টেকনোলজি সম্বন্ধিত আরও খবর জানতে চোখ রাখুন টুকিটেকের ওয়েবসাইট এবং সোশ্যাল মিডিয়া পেজে। 

আরও পড়ুনঃ হোয়াটস অ্যাপ স্প্যাম চেনার পাঁচটি উপায়!

Leave a Reply