ফোটোগ্রাফির শখ হয়ে উঠুক উপার্জনের পথ! কীভাবে? জেনে নিন উপায়

0
6628

ছবি তুলতে অনেকেই ভালোবাসেন। বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে বহু কষ্টে তারা ছবি তোলেন। আপনার যদি এমনই ছবি তোলার সখ থাকে তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্য বিশেষ গুরুত্বপূর্ন।

এমন অনেক মানুষ আছেন যারা নিজেদের চারপাশকে এবং চারপাশে ঘটে যাওয়া মূহুর্তকে ক্যামেরার লেন্সে বন্দী করে রাখতে ভালোবাসেন। অনেক একনিষ্ঠ ফোটোগ্রাফার আছেন যারা একটি সুন্দর ছবির আশায় বহুদূর অবদি ভ্রমন করতেও সক্ষম। আপনারও যদি এই ধরনের বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে ঘুরে সুন্দর সুন্দর ছবি তোলার সখ থাকে, তাহলে এই পোস্টে আপনার জন্য আছে সেই সখকে কাজে লাগিয়ে উপার্জনের সন্ধান।

অনলাইনে কিছু প্ল্যাটফর্ম আছে যেখানে ফোটোগ্রাফাররা তাদের তোলা সুন্দর সুন্দর ছবি বিক্রি করে অনায়াসেই অর্থ উপার্জন করতে পারেন। অনলাইন এই প্ল্যাটফর্ম গুলোতে ছবি বিক্রি করার জন্য প্রোফেশনাল ফোটোগ্রাফার হওয়ার প্রয়োজন পড়ে না। ছবিটি সুন্দর হলেই সেটিকে এই প্ল্যাটফর্মগুলোতে বিক্রি করা যাবে। ছবি তোলার সখ থাকলেই এখন সেটি থেকে সহজেই উপার্জন করা সম্ভব। অনলাইনে এই ধরনের ছবি বিক্রি করার প্রচুর প্ল্যাটফর্ম বর্তমান। তাই এখন ছবি তোলার শখকে সহজেই একটি উপার্জনের রাস্তা হিসাবে বিবেচনা করা যেতেই পারে। আজকের পোস্টে সেই ধরনেরই কয়েকটি অনলাইন প্ল্যাটফর্মের সন্ধান দেওয়া হলো যেখানে ফোটোগ্রাফাররা অনায়াসেই নিজেদের তোলা ছবি বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করতে পারেন। আপনি যদি এই ধরনেই ফোটোগ্রাফার হয়ে থাকেন কিংবা ছবি তোলা আপনার শখ থাকে তাহলে এই অনলাইন প্ল্যাটফর্মগুলো আপনাকে উপার্জনের রাস্তা দেখিয়ে সাহায্য করতে পারে।

পোস্টে আলোচিত বিষয়গুলো হলোঃ

অনলাইনে ছবি বিক্রির ব্যাপারে মনে রাখার মতো কিছু বিষয়

অনলাইন প্ল্যাটপফর্ম গুলোতে ছবি বিক্রি করতে চাইলে, ছবি বিক্রির আগে কিছু বিষয় বিশেষ করে মাথায় রাখতে হয়। এই বিষয়গুলো হলো-

  • অনলাইনের বিভিন্ন ওয়েবসাইটে যেই ছবিগুলো বিক্রির জন্য পোস্ট করবেন সেইগুলো যেন উন্নত মানের হয়।
  • ছবি বিক্রির জন্য কোনো অনলাইন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করার আগে সেই প্ল্যাটফর্মের সমস্ত টার্মস অ্যান্ড কন্ডিশন মন দিয়ে আগে পড়ে নেওয়া উচিত।
  • ছবি আপলোড করার সময়ে ছবির টাইটেল এবং ডেসক্রিপশনে যথাযথ ‘কী-ওয়ার্ড’ ব্যবহার করতে হবে, যাতে ক্রেতা খোঁজা মাত্রই আপনার ছবিটিই যাতে ব্যবহারকারীর সামনে আসে।
  • কোনো অনলাইন প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে নিজের ছবি বিক্রি করার আগে সেই প্ল্যাটফর্ম থেকে কীভাবে, কখন, কার কাছ থেকে এবং কোন ধরনের কারেন্সিতে অর্থ আপনি পাবেন সেটি সম্বন্ধে আগে ভালোভাবে নিশ্চিত হওয়া দরকার।

ছবি বিক্রির অনলাইন প্ল্যাটফর্মের সন্ধান

এইবারে আসা যাক মূল বক্তব্যে। এখন এই পোস্টে দেওয়া হলো এমন কিছু অনলাইন প্ল্যাটফর্মের সন্ধান যেখানে নিজেদের ছবি বিক্রি করে ফোটোগ্রাফাররা অর্থ উপার্জন করতে সক্ষম হবেন।

Shutterstock

Shutterstock সবচেয়ে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট যেটির মাধ্যমে আপনি অনায়াসে অনলাইনে ছবি বিক্রি করতে পারবেন। এই ওয়েবসাইটে ছবি সহ এইচডি এবং 4K ভিডিও-এর একটি বিশাল লাইব্রেরী আছে।

এই ওয়েবসাইট থেকে ফোটোগ্রাফার তার প্রতিটি কাস্টম ইমেজ ডাউনলোড হলে তার থেকে ০.২৫ ডলার থেকে ১২০ ডলার পর্যন্ত আয় করতে সক্ষম হবে। যদিও শাটারস্টকের অর্থের এই কাঠামো একটু জটিল। এই ওয়েবসাইটে আপনার উপার্জনের ওপর ভিত্তি করে আপনার জনপ্রিয়তা নির্ধারিত হয়। এই ওয়েবসাইটে আপনার ছবি যত বেশী ডাউনলোড হবে আপনি তত বেশী আয় করতে পারবেন।

এই ওয়েবসাইটের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বৈশিষ্ট্য হল, এই ওয়েবসাইটে নিজের তোলা ছবি আপলোড করার পরেও এই ওয়েবসাইট ফোটোগ্রাফারকে ছবির কপিরাইট রাখতে দেয়। তবে ফোটোগ্রাফার ছবি বিক্রির অর্থ পুরোটা পাবেন না এখান থেকে। ছবি বিক্রির অর্থের ৩০% অর্থ মাত্র ঢুকবে ফোটোগ্রাফারের কাছে আর বাকিটা কমিশন স্বরূপ যাবে ওয়েবসাইটের আওতায়।

Alamy

অনলাইনে ছবি বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করার আর এক অনন্য ওয়েবসাইট হলো Alamy। এই ওয়েবসাইটের একটি বিশেষ বৈশিষ্ট আছে যেটি এটিকে অন্যান্য ওয়েবসাইটের থেকে আলাদা করে তুলেছে। এই ওয়েবসাইটে শিক্ষার্থীদের জন্য একটি অনন্য পরিকল্পনা রয়েছে, সেই পরিকল্পনা অনু্যায়ী শিক্ষার্থীরা দুই বছরের জন্য তাদের ছবির ১০০% বিক্রয় মূল্য অর্জন করতে পারবেন। কোনো বিশ্ববিদ্যালয় যদি অ্যালামির এই স্কিমের অন্তর্ভূক্ত হয় তাহলে সেই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা অনায়াসে এই সুবিধা গ্রহন করতে পারবে।

এই সাইটে বিক্রির জন্য ১৬০ মিলিয়নেরও বেশি ছবি এবং ভিডিও রয়েছে। ছবি ও ভিডিও-এর এই অপরিসীম স্টক এটিকে বৃহত্তম মার্কেটপ্লেসে পরিণত করেছে। এই ওয়েবসাইটে প্রত্যেক মাসেই প্রচুর পরিমানে ভিজিটরের আনাগোনা থাকে, যাদের মধ্যে কিছু ক্রেতাও লুকিয়ে থাকে। ফটোগ্রাফার বিক্রি করা প্রতিটি ছবির জন্য 50% পর্যন্ত রয়্যালটি পেমেন্ট অর্জন করতে পারেন। ফোটোগ্রাফার চাইলে এই ছবিগুলো অন্য কোনো জায়গাতে বিক্রি করতে পারেন, কিন্তু ফোটোগ্রাফার সেখান থেকে মাত্র ৪০% কমিশন পেতে পারেন।

iStockPhoto

২০০১ সাল থেকে iStockPhoto এই ছবি বিক্রির ইন্ডাস্ট্রিতে আধিপত্য বিস্তার করেছে। এই ওয়েবসাইট প্রাচীনতম ওয়েবসাইটগুলোর একটি যা ফোটোগ্রাফারদের অনলাইনে ছবি বিক্রি করার স্থান প্রদান করে থাকে। এই ওয়েবসাইটের একটি বড়ো সড়ো কন্ট্রিবিউটারের নেটওয়ার্ক আছে  যারা স্ক্রীনিং -এর মাধ্যমে নতুন আবেদনকারী যোগ করতে থাকে।

আপনি যদি আপনার ছবি গুলো এই ওয়েবসাইটে বিক্রি করতে চান চান, তাহলে আপনাকে আপনার ছবির বিষয় অনুযায়ী উপযুক্ত ক্যাটাগরি নির্বাচন করতে হবে এবং একটি বিনামূল্যে অ্যাপ্লিকেশন পূরণ করতে হবে। এরপর আইস্টক টিম আপনার অ্যাপ্লিকেশনটিকে বিবেচনা করে দেখবে এবং আপনাকে পরীক্ষা করার জন্য একটি ক্যুইজের মাধ্যমে কিছু প্রশ্ন জিজ্ঞাসা করবে। এরপর আপনাকে আপনার ছবির কিছু স্যাম্পেল বা নমুনা আপনাকে জমা দিতে হবে এই ওয়েবসাইটে।

এই ওয়েবসাইট থেকে আপনার ছবি বিক্রি হলে আপনি বিক্রয়ের ন্যূনতম 15% পেতে পারেন। তবে আপনি যদি অনেকদিন ধরে এই ওয়েবসাইট ব্যবহার করে ছবি বিক্রি করে যান তাহলে আপনার রয়্যালটি আয় 45% পর্যন্ত বৃদ্ধি পেতে পারে।

AdobeStock

AdobeStock একটি নান্দনিকভাবে আনন্দদায়ক ওয়েবসাইট যা ছবির জন্য ফোটোগ্রাফারকে 33% রয়্যালটি প্রদান করে। তবে এই ওয়েবসাইটের নিয়ম অনুযায়ী ফোটোগ্রাফারের উপার্জনের পরিমান ২৫ ডলার অবদি পৌছালে, তবেই সে নিজের টাকা নিজের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করতে পারবে। অ্যাডোব তার এই ফোটো সেলিং প্ল্যাটফর্মকে তাদের অন্যান্য অ্যাপ্লিকেশনের সাথে মিলিত করেছে যাতে এই প্ল্যাটফর্মে আপলোড করা ছবিগুলো অনেকাংশে ক্রেতাদের কাছে পৌঁছায়।

অ্যাডোবে এছাড়াও ছবি আপলোড করার প্রক্রিয়াটাও বেশ সহজ। এই ওয়েবসাইটে ছবি আপলোড করার সময় ফোটোগ্রাফারকে মনে করে করে ট্যাগ দিতে হবে না। এই ওয়েবসাইটে আছে স্মার্ট ট্যাগিং-এর ফিচার যার মাধ্যমে এই ওয়েবসাইট নিজে থেকে ছবির জন্য উপযুক্ত ট্যাগ ছবিতে সংযোজন করতে সক্ষম। এই প্ল্যাটফর্মটি ফোটোগ্রাফারকে অ্যাডোব ব্রিজ সিসি, অ্যাডোব লাইটরুম সিসি এবং এর ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ছবি আপলোড করার সুযোগ করে দেয়।

Etsy

অনেকের কাছে এটসি পরিচিত শুধুমাত্র হ্যালোউইন কস্টিউম বা অদ্ভুত সজ্জার সন্ধানের জন্য। তবে এই Etsy-তে ফোটোগ্রাফার ইচ্ছা করলে নিজেদের ছবিও বিক্রি করতে সক্ষম হবেন। তবে এই ওয়েবসাইটে ছবি বিক্রি করতে হলে, আপনার ছবি যাতে ক্রেতার নজরে পড়ে তারজন্য অতিরিক্ত কিছু কাজ করতে হবে আপনাকে। অন্যান্য ওয়েবসাইটের মতো সহজেই এই ওয়েবসাইটে ছবি ক্রেতার সামনে আসে না। এখানে ক্রেতাকে আপনার ছবি খুঁজে পেতে অতিরিক্ত প্রচেষ্টা করতে হবে।

এই ওয়েবসাইটের ফি কাঠামো ফটোগ্রাফারদের জন্য উপযোগী যারা উপার্জনের পর্যাপ্ত সুযোগ পান। Etsy শুধুমাত্র প্রতিটি বিক্রয়ের জন্য .২০ মার্কিন ডলার করে নেয় ফোটোগ্রাফারদের কাছ থেকে। যেহেতু Etsy -এর কমিশনের মূল্য এত কম তাই ফোটোগ্রাফাররা এখান থেকে উপার্জনের সুযোগ বেশী পাবেন।

বর্তমানে ইন্টারনেটে এবং বিভিন্ন রকমের মিডিয়ায় উন্নতমানের ছবির চাহিদা প্রবলভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। যদি আপনার ফোটোগ্রাফির বিশেষ শখ থেকে থাকে এবং সেই শখ ব্যবহার করে তার থেকে যদি কিছু অর্থ উপার্জন করতে চান তাহলে এই অনলাইন প্ল্যাটফর্মগুলো আপনাকে ভবিষ্যত উপার্জনের দিকে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে। তাহলে আর দেরী না করে নিজেদের অসাধারন ফোটোগ্রাফি দক্ষতা ব্যবহার করে সুন্দর সুন্দর ছবি তুলুন এবং সেই ছবি গুলোকে এই ধরনের অনলাইন প্ল্যাটফর্মে বিক্রি করে অর্থ উপার্জনও শুরু করে দিন।

আপনার কি মনে হয় এই ছবি বিক্রি করার অনলাইন প্ল্যাটফর্মগুলোর সম্বন্ধে? অনলাইনে ছবি বিক্রি করে উপার্জনের এই উপায় কী আপনাকে কোনো নতুন রাস্তার দিশা দেখালো? অনলাইনে ছবি বিক্রি করার উপায় এবং তার প্ল্যাটফর্মগুলো সম্বন্ধে সমস্ত বৃত্তান্ত নিয়ে লেখা এই পোস্ট আপনার কেমন লাগলো তা অবশ্যই আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনের মাধ্যমে

জানান এবং লাইক ও শেয়ার করে পোস্টটিকে ছড়িয়ে দিন সকলের মাঝে। টেকনোলজি জগতের বর্তমান খবরা-খবর রাখতে এবং নিজের জীবনকে আরও আধুনিকতায় সাজিয়ে তুলতে অবশ্যই চোখ রাখুন টুকিটেকের ওয়েবসাইট এবং সোশ্যাল মিডিয়া পেজে। 

আরও পড়ুনঃ স্টক মার্কেটে বিনিয়োগ করতে চান কিন্তু অর্থের পরিমান কম? চিন্তা নেই, আছে উপায়- জেনে নিন বিস্তারিত

Leave a Reply