কোটিপতি হওয়ার স্বপ্ন পূরণের জন্য, অর্থ সঞ্চয় করার তিনটি অসাধারণ উপায় জেনে নিন!

0
1339

সব মানুষেরই জীবনের লক্ষ্য থাকে বিলাসিতায় জীবন অতিবাহিত করার জন্য প্রচুর অর্থ উপার্জন করার।কোটিপতি হওয়ার স্বপ্ন পূরণের জন্য প্রচুর পরিশ্রমও করে থাকে বহু মানুষ।কিন্তু সেই উপার্জিত অর্থ ধরে রাখার উপায় না জানা থাকায় স্বপ্নগুলো সেই অধরাই থেকে যায়।

এমন অনেক মানুষ আছেন যারা হয়তো উপার্জন করেছেন অনেক কম কিন্তু অবসর গ্রহনের সময় দেখা গেছে তারা বেশ ধনী ব্যক্তিতে পরিণত হয়েছে।সেই জায়গায় যেই ব্যক্তি সারাজীবন প্রচুর অর্থ উপার্জন করেছেন অবসর নেওয়ার সময় দেখা গেল তার উপার্জিত অর্থের প্রায় কিছুই নেই তার কাছে।এই হেরফের-এর কারণ অর্থ সঞ্চয়ের প্রক্রিয়া।প্রথম ব্যক্তি জীবনে কম উপার্জন করে থাকলেও তিনি তার উপার্জিত অর্থ সঠিক উপায়ে সঞ্চয় করেছেন ফলে তিনি কম উপার্জন করেও ধনী হতে সক্ষম হয়েছে।যেটি দ্বিতীয় ব্যক্তি অধিক উপার্জন করেও ধনী হতে পারেন নি।

অর্থ সঞ্চয় করতে হলে প্রথমেই অর্থের অনর্থক অপচয় বন্ধ করতে হবে।দরকারের অধিক অর্থ অপচয় করা বন্ধ করতে হবে।এছাড়াও কিছু খরচ একেবারে বন্ধ করে দিতে হবে।তবে অর্থ ব্যয় বন্ধ করে দেওয়া মানে কিন্তু দরিদ্রের মতো জীবন নির্বাহ করা নয়।আজকের পোস্টে আমরা অর্থ সঞ্চয়ের তিনটি উপায় নিয়েই আলোচনা করবো।   

১।নিয়ম মেনে চলুন

জীবনে সবসময় একটি সামঞ্জস্য মেনে চলতে হয়।মাসিক খরচের জন্য একটি নিয়ম মেনে চলতে হয়,তবেই সঞ্চয় করা সম্ভব হবে।মাসিক খরচের মধ্যে আরও সস্তায় কিছু পাওয়া যায় কিনা সেটি খোঁজ করে তার ওপরে ব্যয় করলে দেখা যাবে মাসের শেষে অনেকটা অর্থ সঞ্চয় হয়ে গেছে।

  • টিভি কেবলের যে প্ল্যান আছে সেটির পরিবর্তে আরেকটু কম দামের প্ল্যান থাকলে সেটি নিতে শুরু করুন।
  • অপ্রয়োজনীয় জিনিসের ওপর মাসিক খরচ বন্ধ করুন।
  • যেই অনলাইন স্টোরে ভীষনভাবে খরচ হয় সেই অনলাইন স্টোর থেকে নিজের ক্রেডিট কার্ডের তথ্য মুছে ফেলুন।
  • বাইরে থেকে সবসময় খাবার অর্ডার দিয়ে না আনিয়ে বাড়িতে রান্না করার চেষ্টা করুন।

এই নিয়মগুলো মেনে চললে দেখা যাবে মাসের শেষে অনেকটা অর্থ সঞ্চয় করা হয়ে গেছে।

২।শুধুমাত্র প্রয়োজনীয় বস্তুর ওপর ব্যয় করুণ

অনেক সময় কোনো জিনিস শুধুমাত্র ভালো লেগেছে বলে লোকে সেই জিনিসের ওপর প্রয়োজন না থাকা সত্ত্বেও ব্যয় করে ফেলে।তাই কোনো কিছুর ওপর ব্যয় করার আগে ভেবে দেখা উচিত সেই বস্তুর প্রয়োজন সত্যিই আছে কিনা।কোনো কিছু কেনার আগে কয়েকটি প্রশ্ন নিজেকে জিজ্ঞাসা করা উচিত-

  • আমার কি সত্যিই এটা প্রয়োজন?
  • এরকম ধরনের খরচ আমি শেষ কবে করেছি?
  • কীসের জন্য আমি এই বস্তুটা কিনছি?

এইভাবে ভেবেচিন্তে খরচ করলে প্রত্যেক মাসে অনেকটা অর্থ সঞ্চয় করা সম্ভব হয়।

৩।বড়োসড়ো খরচগুলি ভেবেচিন্তে করা উচিত

একজন মানুষের জীবনের সবচেয়ে বড়ো দুটি খরচ হলো-

  • সম্পত্তির খরচ
  • যানবাহনের খরচ

যতবেশীই উপার্জন করা হোক না কেন সেই উপার্জনের বেশীরভাগই খরচ হয়ে যায় যাতায়াতের খরচে এবং বসবাসের খরচে।সব মানুষই হয় নিজের বাড়িতে না হয় ভাড়া বাড়িতে থাকেন।নিজের বাড়ি থাকলে সেই বাড়ির রক্ষনাবেক্ষনের জন্য খরচ হয় আর ভাড়া থাকলে থাকে সেই ভাড়ার খরচ।তাই এইসব বড়োবড়ো খরচের দিক থেকেও কতটা সাশ্রয় করা যায় সেই বিষয়ে চিন্তা করা প্রয়োজন।

উপার্জনের অর্থ সাশ্রয় করতে হলে সব খরচই ভীষনভাবে ভেবে চিনতে করা প্রয়োজন।সঠিক উপায়ে সাশ্রয় এবং বিনিয়োগের মাধ্যমেই অর্থ সঞ্চয় করা সম্ভব হয়। আপনার কি মনে হয়?আপনার মতামত অবশ্যই আমাদের জানান কমেন্ট সেকশনের মাধ্যমে এবং লাইক ও শেয়ার করে পোস্টটিকে ছড়িয়ে দিন সকলের মাঝে।টেকনোলজি সম্বন্ধিত আরও খবর জানতে চোখ রাখুন টুকিটেকের ওয়েবসাইট এবং সোশ্যাল মিডিয়া পেজে। 

Leave a Reply